পারফিউম এবং বডি-স্প্রে এর মধ্যে পার্থক্য জেনে নিন | Rahul IT BD

পারফিউম এবং বডি-স্প্রে এর মধ্যে পার্থক্য জেনে নিন

প্রিয় পাঠক আপনি কি পারফিউম এবং বডি স্প্রে এর মধ্যে পার্থক্য, পারফিউম কি, বডি স্প্রে কি এবং এর ব্যবহার সম্পর্কে জানতে চান? তাহলে আপনি অবশ্যই সঠিক জায়গাতে ক্লিক করেছেন। আপনি যদি এই সম্পর্কে জানতে চান তাহলে এই পোস্টটি আপনার জন্য।
পারফিউম এবং বডি-স্প্রে এর  মধ্যে পার্থক্য
তাই পারফিউম এবং বডি স্প্রে এর পার্থক্য সম্পর্কে আপনার না জানা থাকলে আপনি অবশ্যই এই পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ুন। কারণ এই পোস্টটি সম্পর্কে অনেক বেশি ইনফরমেটিভ হবে। তাই আর বেশি দেরি না করে এই সম্পর্কে জেনে নিন।

ভূমিকা

প্রিয় বন্ধুরা আপনারা অনেকেই পারফিউম এবং বডি স্প্রে এর ব্যবহার সম্পর্কে ইন্টারনেটে সার্চ করে থাকেন। আপনারা যারা এর পার্থক্য সম্পর্কে জানেন না বা না জানার কারণে সমস্যায় আছেন। 

এই পোস্টটি আপনারা মনোযোগ দিয়ে পড়লে এ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পাবেন। এবং আপনাদের সমস্যার সমাধান হবে আশা করি পাশাপাশি আপনারা এ সম্পর্কে জেনে অনেক উপকৃত হবেন।

পারফিউম এবং বডি-স্প্রে এর মধ্যে পার্থক্য জেনে নিন

প্রাচীন যুগ থেকে শুরু করে বর্তমান সময় পর্যন্ত নারী ও পুরুষের পছন্দের তালিকায় রয়েছে নানা ধরনের পারফিউম এবং বডি-স্প্রে। আমরা কম বেশি সবাই এ সম্বন্ধে জানি এবং প্রতিনিয়ত এই উপকরণগুলো ব্যবহার করে থাকি। 

এটা এমন একটা জিনিস যা আমাদের মনকে প্রভাবিত করে এর সুগন্ধি আমাদের শরীর ও মনকে সতেজ ,প্রফুল্ল ও প্রাণবন্ত রাখতে সাহায্য করে। এছাড়াও নিজের ব্যক্তিত্বকে এবং রুচিশীলতা প্রকাশের একটি মাধ্যম হলো ভালো মানের ও সুগন্ধি যুক্ত পারফিউম ব্যবহার করা।

পারফিউম ও বডি-স্প্রে দুটোই সুগন্ধি প্রোডাক্ট। যা শরীরের সুগন্ধির জন্য ব্যবহার করা হয়। তাদের মধ্যে অনেকাংশে মিল থাকলেও ব্যবহারের দিক থেকে পার্থক্য রয়েছে। 

এমনকি ছেলেদের এবং মেয়েদের সুগন্ধির মধ্যেও পার্থক্য আছে। এর উপাদান, ঘ্রাণ, স্থায়িত্ব ইত্যাদি সকল বিষয়ের মধ্যেই বিশেষ পার্থক্য রয়েছে। যেহেতু দুটির কাজ ভিন্ন তাই ক্ষেত্রবিশেষে এদের আলাদা আলাদা ভাবে ব্যবহার করা হয়। 

তাই কেউ যদি সৌন্দর্য সচেতন হয়ে থাকেন তবে দুটি সুগন্ধীর মধ্যে যে পার্থক্যটা রয়েছে তা জেনে রাখা জরুরী। আমরা অনেকেই এই পার্থক্যগুলি জানিনা। চলুন জেনে নেওয়া যাক, পারফিউম ও বডি -স্প্রের মধ্যে পার্থক্য।

* ব্যবহার-  পারফিউম একটি তরল দ্রব্য যা কাপড়ে ব্যবহার করা হয় সুগন্ধির জন্য। অনেক সময় এক্ষেত্রে আমরা আতর ব্যবহার করে থাকি। আর বডি-স্প্রে ব্যবহার করা হয় শরীরের দুর্গন্ধ দূর করতে। শরীরকে সুগন্ধযুক্ত রাখতে শরীরের বিভিন্ন অংশে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

* ধরন- পারফিউমের উপাদান অনুজাইয়ের ঘ্রাণ তুলনামূলকভাবে একটু করা হয়। অপরদিকে বডি-স্প্রে একটু হালকা ঘ্রাণের।

* ঘনত্ব- পারফিউম তুলনামূলকভাবে ঘন হয় অপরদিকে বডি স্প্রেতে পানির পরিমাণ বেশি তাই এটার ঘনত্ব কম। করা ঘ্রাণ আর স্থায়িত্বের ক্ষেত্রে এই ফ্যাক্টর টা কাজ করে।

* স্থায়িত্ব- পারফিউম ঘন এবং করা ঘ্রাণের হওয়ার কারণে স্থায়িত্বটা বেশি হয়ে থাকে। অর্থাৎ এর ঘ্রাণ সহজে চলে যায় না দীর্ঘক্ষণ ধরে থাকে। বডি-স্প্রে পাতলা বা পানি জাতীয় হয়ে থাকে যে কারণে এর স্থায়িত্ব কম তাই এটি ব্যবহার করার কিছুক্ষণ সময়ের মধ্যেই এর ঘ্রাণটা হারিয়ে যায় বা পাওয়া যায় না।

* ব্যবহারের ক্ষেত্র ও সময়ে পার্থক্য- পারফিউম সাধারণত ব্যবহার করা হয় মাঝে মাঝে কোন অনুষ্ঠানে বা অকেশনে। দিনে-রাতে যে কোন পার্টিতে পারফিউম ব্যবহার করলে নিজেকে অনেক আকর্ষণীয় এবং নিজের ব্যক্তিত্ব ও রুচিশীলতা কে বাড়িয়ে তোলা সম্ভব। 

বডি স্প্রে সচরাচর সবসময় ব্যবহার করা হয়। অফিসে বা বাড়িতে সব সময় বডি স্প্রে ব্যবহার করা ভালো।

* দাম- পারফিউমের ঘনত্ব টা একটু বেশি থাকে যে কারণে এর দামটা বেশি হয়। উচ্চ ঘনত্বের পারফিউম গুলির ঘ্রাণ অনেক শক্তিশালী হয় ও দীর্ঘ সময় ধরে থাকে। 

যে কারণে এগুলির দাম তুলনামূলকভাবে বেশি হয় তবে অনেকে ভাবেন অতিরিক্ত মূল্য তেমনটা কিন্তু নয়। বাজারে পারফিউমের দাম বডি স্প্রের চাইতে বেশি।

* অ্যালকোহলের পরিমাণ- পারফিউমে অ্যালকোহলের পরিমাণ কম থাকে। আর বডি স্প্রেতে অ্যালকোহলের পরিমাণ একটু বেশি থাকে। তুলনামূলকভাবে বডি-স্প্রেতে অ্যালকোহলের পরিমাণ বেশি, তাই স্প্রে করার পর আপনি অ্যালকোহলের হালকা ঘ্রাণ পাবেন।

পারফিউম কি? জেনে নেওয়া যাক

পারফিউম একটি সুগন্ধি পণ্য যা তরল প্রকৃতির হয়ে থাকে ।এটি আতর প্রজাতির যা মহিলারা তাদের পোশাকের দুর্গন্ধ দূর করার জন্য ব্যবহার করে থাকেন। 

পারফিউম সুগন্ধীর জন্য কাপড়ে ব্যবহার করা হয় এটা সরাসরি নগ্ন শরীরের কোন অংশে লাগানো হয় না। প্রাচীন কাল থেকেই মানুষ সুগন্ধির জন্য পণ্য ব্যবহার করে থাকে।

 পারফিউম তৈরিতে ব্যবহার করা হয় সুগন্ধি, এসেনশিয়াল ওয়েল, নির্দিষ্ট পরিমাণে অ্যালকোহল ইত্যাদি। এছাড়াও নানা ধরনের সুগন্ধি দ্রব্য যেমন গোলাপ, বেলী, রজনীগন্ধা, জুঁই, চন্দন, লেভেন্ডার ইত্যাদি। 

প্রক্রিয়াকরণের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের পারফিউম হিসেবে তৈরি করা হয় যা সরাসরি ব্যবহার করা যায় বা স্প্রের মাধ্যমে ব্যবহার করা যায়।

এটি সরাসরি শরীরের ব্যবহার না করে পোশাকে ব্যবহার করা হয়। পোশাককে দীর্ঘক্ষণ সুন্দর এবং সুগন্ধযুক্ত রাখতে এটি ব্যবহার করা হয়। কারণ সুগন্ধি ব্যবহার করলে আপনার মন ভালো থাকে এবং মেজাজে প্রফুল্লতা আনে। 

তবে এমন সুগন্ধি ব্যবহার করা উচিত যা আপনার ব্যক্তিত্বের সাথে মিলে যায় এবং সবার সামনে সুন্দরভাবে আপনার পার্সোনালিটি প্রকাশ পায়। 

বিভিন্ন ঘ্রাণের পারফিউম বাজারে পাওয়া যায় তবে আপনি আপনার পছন্দ অনুযায়ী যে কোন সুগন্ধযুক্ত পারফিউম বেছে নিতে পারেন তবে অবশ্যই খেয়াল রাখা উচিত সেটা যেন আপনার ব্যক্তিত্বের সঙ্গে খাপ খায়।

পারফিউম হলো ফেরোমনস সমৃদ্ধ এবং আপনাকে আকর্ষণীয় করে তুলতে এর কোন জুড়ি নেই। কিছু ভালো মানের পারফিউমের মধ্যে রয়েছে-এক্স সিগনেচার চ্যাম্পিয়ন, ফগ প্রিন্স পারফিউম, কালার মি, গুচি, ডিয়র ইত্যাদি।

বডি স্প্রে কি? জেনে নেওয়া যাক

বডি স্প্রে বা ডিওডেন্ট হলো এক ধরনের সুগন্ধি প্রোডাক্ট যাকে আমরা ইংরেজিতে Deo নামেই ব্যাপকভাবে চিনি। বডি স্প্রে হল পারফিউমের বিপরীত। এটি তরল জাতীয় দ্রব্য যা পোশাকে ব্যবহার না করে সরাসরি শরীরে ব্যবহার করা হয় যাতে শরীরের দুর্গন্ধ দূর হয়। 

যেহেতু আমাদের দেশটি গরম প্রধান দেশ যে কারণে অল্পতে ঘেমে শরীরে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। আর দুর্গন্ধ থেকে রেহাই পাওয়ার জন্যই ব্যবহার করা হয় বডি স্প্রে।

এতে ব্যবহার করা হয় বিউটেন, পারফিউম প্রোপেন অ্যালকোহল ইত্যাদি। এ সকল উপকরণের সমন্বয়ে তৈরি হয় বডি স্প্রে যেটা স্প্রে করার মাধ্যমে শরীরে ব্যবহার করা হয়। বডি স্প্রে গুলি কলনে সুগন্ধির তুলনায় শক্তিতে হালকা, সাধারণত কম ব্যয়বহুল এবং হিসেবে দ্বিগুণ। 

তবে যে বডি স্প্রে ব্যবহার করা হোক না কেন তা যেন হয় ভালো সুগন্ধি যুক্ত। কারণ ভালো সুগন্ধি ব্যবহারের মাধ্যমে  রুচিশীলতা ও ব্যক্তিত্বের প্রকাশ ঘটে। 

ভালো মনের কিছু বডি স্প্রের ব্র্যান্ডের নামের মধ্যে রয়েছে- ফগ বডি স্প্রে, নিভিয়া বডি স্প্রে, কুল বডি স্প্রে, জিরো সেভেন বডি স্প্রে, রেক্সোনা ইত্যাদি। 

পারফিউম ব্যবহারের নিয়ম জেনে নিন

সুগন্ধি হলো ব্যক্তিত্বের একটি অংশ। পারফিউম পছন্দ করে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না। তবে অনেকেই এর সঠিক ব্যবহার করার নিয়ম জানেন না যার ফলে বেশি সময় পারফিউমের গন্ধ ধরে রাখতে পারা যায় না। 

তবে অতিরিক্ত ব্যবহারের চাইতে নিয়ম মেনে পরিমান মত পারফিউম ব্যবহার করা উচিত। পারফিউম ব্যবহারের কিছু নিয়ম রয়েছে নিম্নে সেগুলো আলোচনা করা হলো।

* গোসলের পরে পারফিউম ব্যবহার করুন- গোসলের ফলে ত্বকের লোমকূপ উন্মুক্ত থাকে ফলে পারফিউম স্প্রে করলে তার সুবাস দীর্ঘক্ষন সময় ধরে ছড়ায়। 

তাই গোসল করে বের হওয়ার ঠিক পরে পারফিউম লাগিয়ে নিতে পারেন। এতে ত্বক পারফিউম ধরে রাখতে পারে দীর্ঘক্ষন তবে গোসলের পর যে কোনো মর্যাদা লাগিয়ে নিয়ে তারপরও পারফিউম স্প্রে করতে পারেন।

* পালস পয়েন্ট- পালস পয়েন্ট ছাড়াও শরীরের অন্য কিছু অংশে স্প্রে করলেও পারফিউম এর গন্ধ স্থায়ী হয়। কানের পেছনে, পেটে, হাঁটুর পিছনে, এমনকি গোড়ালিতে পারফিউম লাগানো যায়। 

শরীরে নিচের দিকের অংশে সুগন্ধি স্প্রে করলে স্থায়িত্ব অনেক বেশি হয় কারণ নিচের পালস পয়েন্ট গুলো থেকে গন্ধটা ধীরে ধীরে উপর দিকে উঠে আসে।

* ঘোষে ব্যবহার করবেন না- পারফিউম ব্যবহার করার পরে তা ঘষাঘষি করা যাবে না ফলে সঠিক ঘ্রাণ পাওয়া যায় না। অনেকে হাতের কব্জিতে পারফিউম দিয়ে কাপড় বা শরীরে অন্য কোন অংশে ঘষে এটা করার প্রয়োজন নেই। 

তাই হাতে পারফিউম লাগিয়ে হাত প্রসারিত করুন এবং নারুন এতে ত্বক প্রাকৃতিকভাবে পারফিউমকে উষ্ণ করবে ও সুবাস ছড়াবে।

* চুলে স্প্রে করুন- পারফিউমের সুগন্ধি দীর্ঘস্থায়ী করতে চুলে স্প্রে করুন। সরাসরি স্প্রে না করে চিরুনিতে পারফিউম স্প্রে করুন এবার চিরুনি দিয়ে চলে আসেন। চুলে পারফিউমের সুগন্ধি ধরে রাখার অসাধারণ ক্ষমতা আছে হেঁটে যাওয়ার সময় এটা দারুন ভাবে ঘ্রাণ ছড়ায়।

* রাত ও দিনের সুগন্ধি- কিছু কিছু পারফিউম ব্যবহার করা হয় নির্দিষ্ট সময়ে অর্থাৎ রাতে ও দিনের জন্য। দিনের বেলা তুলনামূলকভাবে ভারী সুগন্ধি গুলো ব্যবহার করা হয় আর রাতের বেলায় হালকা। কারণ দিনের বেলায় অনেকটা সময় ধরে সুগন্ধির প্রয়োজন পড়ে।

* ময়শ্চারাইজার ব্যবহার -পারফিউম দেওয়ার আগে হাতে-পায়ে ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। কারণ ত্বক খসখসে থাকার বদলে যদি মসৃণ আর নরম থাকে তাহলে পারফিউম নিজের মধ্যে টেনে নেয় অনেকক্ষণের জন্য।

* পরিমাণ মতো ব্যবহার করুন- বেশি পরিমাণে পারফিউম ব্যবহার করা উচিত নয় এটা ত্বকের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। সঠিক জায়গায় অল্প পরিমাণে ব্যবহার করুন দরকার হলে চার পাঁচ ঘন্টা পর পর কিছুটা পারফিউম পুনরায় ব্যবহার করতে পারেন।

* কাপড় না ত্বক- কাপড়ের ওপর সুগন্ধি ব্যবহার করবেন না কারণ এতে থাকা নানা রকম পদার্থ কাপড়ের দাগ ফেলে দিতে পারে । সুগন্ধি সবসময় ত্বকে ব্যবহার করুন।

* আদর্শ জায়গা- পারফিউম ব্যবহারের জন্য কিছু আদর্শ জায়গা রয়েছে সেগুলো হল হাতের কব্জি, কোন এর ভেতরের অংশ, হাঁটুর পেছনে, পায়ের গোড়ালি, নাভির কাছে ও কানের পেছনে। এসব জায়গা সুগন্ধি লাগালে ঘ্রাণ বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়।

বডি স্প্রে ব্যবহারের নিয়ম জেনে নেওয়া যাক

প্রাচীনকাল থেকে মানুষের শরীরে সুগন্ধির ব্যবহার আভিজাত্য, মর্যাদা ও ব্যক্তিত্বের পরিচয় হিসেবে পরিলক্ষিত হয়ে আসছে। সুগন্ধি পছন্দ করেনা এমন মানুষ নেই বললেই চলে। শরীর থেকে ঘামের দুর্গন্ধ দূর করতে বডি স্প্রে অত্যন্ত কার্যকরী। তাই বডি স্প্রে, ডিওডেন্ট এ জাতীয় সুগন্ধি ব্যবহার করে থাকেন। 

তবে অনেক বডি স্প্রে আছে যেগুলির সুগন্ধি খুব বেশিক্ষণ স্থায়ী হয় না । আর বডি স্প্রে ব্যবহারের সঠিক নিয়ম মেনে চললে এর সুগন্ধি দীর্ঘক্ষণ ধরে রাখা সম্ভব।

অতিরিক্ত ঘামলে বডি স্প্রের সুগন্ধিটা নষ্ট হয়ে যায় তাই যতটা সম্ভব কম ঘামার চেষ্টা করুন তাহলে বডি স্প্রের সুগন্ধিটি স্থায়ী হবে। সাধারণত গোসলের পরে বা ফ্রেশ হওয়ার পরে বডি স্প্রে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। 

বডি স্প্রে ব্যবহারের কারণে সারাদিন শরীর দুর্গন্ধ মুক্ত থাকে এবং শরীরকে রাখে সতেজ। বডি স্প্রে শরীরের নির্দিষ্ট স্থানে ব্যবহার করা হয় যেমন বগলে, গলায় অথবা যেসব স্থানে বেশি ঘাম হয় সে সকল স্থানে। 

তবে খেয়াল রাখতে হবে বডি স্প্রে যেন স্পর্শ কাতর জায়গা অর্থাৎ চোখে, মুখে বা নাক পর্যন্ত না পৌঁছায়। কারণে এতে ব্যবহৃত অ্যালকোহল এ সকল জায়গায় পৌঁছালে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

এটি ব্যবহার করার সময় আমরা একটু দূরত্ব বজায় রেখে ব্যবহার করব কারণ কিছু কিছু বডি স্প্রে শরীরে এলার্জি সৃষ্টি করে থাকে।
যদি দেখা যায়, যে বডি স্প্রেটি ব্যবহার করার ফলে এলার্জি সৃষ্টি হচ্ছে সেই বডি স্প্রেটি বদলে ফেলতে হবে বা পরিবর্তন করতে হবে।

পরিশেষে

প্রিয় বন্ধুরা আপনারা যারা এই পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়েছেন এবং বিস্তারিত বুঝেছেন আমি আশা করি আপনারা উপকৃত হয়েছেন। এ ধরনের আর্টিকেল পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি নিয়মিত ভিজিট করতে থাকুন। 

আবার দেখা হবে নতুন কোন আর্টিকেলে সে পর্যন্ত আমাদের পাশেই থাকুন। সবশেষে আমি আপনার এবং আপনার পরিবারের সকলের সুস্বাস্থ্যতা কামনা করে আজকের মত এখানেই শেষ করছি ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url