পড়ালেখার পাশাপাশি আয় করার কার্যকরী উপায় সম্পর্কে জেনে নিন | Rahul IT BD

পড়ালেখার পাশাপাশি আয় করার কার্যকরী উপায় সম্পর্কে জেনে নিন

প্রিয় পাঠক আজকের এই আর্টিকেলে পড়ালেখার পাশাপাশি আয় করার উপায়, পড়াশোনা পাশাপাশি টাকা উপার্জনের পদ্ধতি, গরিব মধ্যবিত্ত শিক্ষার্থীদের জন্য আয়ের সেরা উপায় ইত্যাদি বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হয়েছে।
পড়ালেখার পাশাপাশি আয় করার কার্যকরী উপায়
আপনারা যারা এ সম্পর্কে জানতে চান তারা এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন।

ভূমিকা

প্রিয় বন্ধুগণ আমাদের অনেকেই পড়ালেখার পাশাপাশি আয় করার বিভিন্ন উপায় সম্পর্কে জানতে ইন্টারনেটে সার্চ করে থাকেন। তাই আপনাদের জন্য আজকের আর্টিকেলটি অনেক বেশি ইনফরমেটিভ হবে, এ সম্পর্কে জানতে মনোযোগ দিয়ে শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন। আশা করি আপনারা উপকৃত হবেন।

পড়ালেখার পাশাপাশি আয় করার কার্যকরী উপায় জেনে নিন

পড়ালেখার পাশাপাশি অনেক প্রতিকূল পরিবারের ছেলেমেয়েরা অল্প বয়স থেকে বিভিন্ন কাজের মধ্যে ঢুকে যায়। পরিবারের অবস্থা সচ্ছল হলেও বাবা মায়ের কাছ থেকে টাকা না নিয়ে যদি নিজে উপার্জন করা যায় সেই উপার্জনটা যদি হয় খুবই সামান্য তারপরও সেটাতে অনেক আনন্দ পাওয়া যায়। 

ছাত্র অবস্থায় প্রতিটা ছেলেমেয়ে চায় আত্মনির্ভরশীল হতে। নিজের হাত খরচার কিছু টাকা পরিবারের কাউকে উপহার দেওয়া এগুলো যদি নিজে উপার্জনের টাকা দিয়ে করা যায় তাহলে আলাদা একটা শান্তি পাওয়া যায়। পড়ালেখার পাশাপাশি অনেক ছেলে মেয়েরাই বিভিন্ন রকম পার্টটাইম কাজ করে থাকে। 

এক বা অধিক উপায়ে এই আয় করা যায় সেগুলো হল-
* টিউশনি-পড়াশোনার পাশাপাশি আয় করার কথা চিন্তা করলেই প্রথমে আসে টিউশনি। অনেক ছাত্রছাত্রী রয়েছে যারা টিউশনি করে নিজের পড়াশোনার খরচ নিজে চালিয়ে থাকে। কিছু পদ্ধতি এপ্লাই করে খুব সহজ স্টুডেন্ট ম্যানেজ করা যায়। টিউশনিতে শুধু টাকা আয় জন্যই করা হয় তা কিন্তু নয় এটা অনেক আনন্দ দিতে পারে।

* হাতের কাজ-লেখাপড়ার পাশাপাশি হাতের কাজের মাধ্যমেও আয় করা যায়। অনেকে অনেক কিছুই করে শখ হিসাবে এবং এসব থেকে অনেক আয় করা সম্ভব।

* ফটোগ্রাফি-বর্তমান সময়ে ছবি তোলাটা একটা শখে পরিণত হয়েছে। ফোনে ছবি তুলে না এমন লোকের সংখ্যা নেই বললেই চলে। ছবি তোলা কে প্রফেশন হিসেবে নিতে পারলে, প্রফেশনাল ফটোগ্রাফির দিকে মনোযোগ যদি থাকে তবে একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা ম্যানেজ করে ফটোশুট করে আয় করা যায়। বিভিন্ন অনুষ্ঠান বা বিয়ে বাড়িতে যেয়ে ছবি তুলে আয় করা যেতে পারে।

* facebook-বর্তমান সময়ে ফেসবুক ব্যবহার করেনা এমন লোকের সংখ্যা নেই বললেই চলে। শুধু হাই হ্যালো হিসেবে facebook কে ব্যবহার না করে এটাকে আয়ের একটি মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। ব্যবসার জন্য এটি ফেসবুক পেজ তৈরি করে তাতে গ্রাহক আনা ও তাদের কাছে প্রোডাক্ট পৌছিয়ে দিয়ে আয় করা যায়।

* রেস্টুরেন্টে বা হোটেলে-পড়াশোনার পাশাপাশি চাকরি করে আয় করার যেমন সুযোগ রয়েছে তেমনি কোন রেস্টুরেন্টে বা হোটেলে ক্যাশিয়ার হিসেবে কাজ করেও আয় করা যেতে পারে।

* workshop-নির্দিষ্ট কিছু বিষয়ে ভালো দখল থাকলে তা মানুষকে ওয়ার্কশপের মাধ্যমে শেখানো যেতে পারে। একটি নির্দিষ্ট এন্ট্রি ফি এর মাধ্যমে এই ওয়ার্কশপটি করলে আয় করা সম্ভব।

* ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট-দেশের আনাচে-কানাচে নানা ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি বিভিন্ন ব্র্যান্ড প্রমোশনের কাজে নিয়োজিত। এসব প্রতিষ্ঠানে কাজের মাধ্যমে অনেক কিছু শিখতে পারা যায় আবার ব্যবস্থা করা যায়।

* ফ্রিল্যান্সিং-বর্তমান সময়ে ফ্রিল্যান্সিং আয়ের একটি অত্যন্ত জনপ্রিয় মাধ্যম। অনেক ছাত্রছাত্রী পড়াশোনার পাশাপাশি ফ্রিল্যান্সিং করে অর্থ উপার্জন করছে।

ছাত্রছাত্রীদের জন্য পড়াশোনার পাশাপাশি আয় করার সহজ ৮টি উপায় জেনে নিন

টাকা মানুষের জীবনে অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি বিষয়। টাকা ছাড়া অনেক কিছুই জীবনে করা সম্ভব হয় না। আত্মনির্ভরশীল হতে হলে প্রথমে টাকা আয় করতে হবে। তাই পড়ালেখা অবস্থায় টাকা আয় করতে শিখতে হবে।

* টিউশনি করে টাকা উপার্জন করা যেতে পারে। এতে একদিকে যেমন টাকা করা যাবে অন্যদিকে পড়াশুনার চর্চা ও থাকে। কথা আছে ‘‘জ্ঞান বিতরণ করলে জ্ঞান বাড়ে’’। মাধ্যমিক বা উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে বিজ্ঞান গণিত ইংরেজি এগুলো বিষয় পড়ালে পরবর্তীতে চাকরির প্রস্তুতি হয়ে যায়।

* স্বল্প পুঁজির ব্যবসা-কিছু ব্যবসা রয়েছে যেগুলোতে পুঁজি স্বল্প হলেও হয়। কারণ ছাত্র জীবনে বেশি পুজি বা মূলধন থাকে না । ছাত্র জীবনে পড়াশোনার পাশাপাশি বিভিন্ন রকম স্বল্প পুঁজির ব্যবসা দিয়ে আয় করার কাজটি শুরু করা যেতে পারে। 

যেমন-নির্দিষ্ট কোন কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবহার করে নানা রকম ডিজাইনের টি-শার্ট, জার্সি, চাবির রিং ইত্যাদি তৈরি করে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় বা শিক্ষার্থীদের মাঝে বিক্রি করা যেতে পারে। এছাড়াও একটা কম্পিউটার বা প্রিন্টার থাকলে শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্টের প্রিন্টের ব্যবসা করা যেতে পারে।

* পার্ট টাইম চাকরি করে আয়-ছাত্র জীবনে পড়াশোনার পাশাপাশি খন্ডকালীন চাকরি করা যেতেই পারে। আমাদের দেশের প্রচলনটা কম থাকলেও উন্নত দেশগুলোতে শিক্ষার্থীরা পড়াশোনার পাশাপাশি আয় করে থাকে। যেমন রেস্টুরেন্ট, শপিংমলে জব করা যেতে পারে। এসব খন্ডকালীন চাকরি করলে একদিকে যেমন অভিজ্ঞতা বাড়ে তেমনি অন্য দিকে অর্থ আয় করা যায়।

* কন্টেন্ট রাইটিং-যে সমস্ত ছাত্র-ছাত্রীদের হাতের লেখার অভ্যাস আছে তারা এই দক্ষ থেকে কাজে লাগিয়ে নানা রকম কনটেন্ট লিখতে পারেন। বিভিন্ন কোম্পানিগুলো তাদের ওয়েবসাইট, সোশ্যাল মিডিয়া এবং ব্লগ কন্টেন্ট রাইটারদের টাকা দিয়ে হায়ার করে থাকে। 

বর্তমানে এটি একটি জনপ্রিয় মাধ্যম অর্থ উপার্জনের জন্য সহজ মাধ্যম বলা যেতে পারে। অর্থ উপার্জনের পাশাপাশি দক্ষতা বাড়ানো সম্ভব।

* দক্ষতা কাজে লাগানো-কিছু ছেলে মেয়ে রয়েছে যারা নির্দিষ্ট কিছু বিষয়ে পারদর্শী হয়ে থাকে যেমন কেউ গিটার বাজাতে পারে ভালো করে, কেউবা ছবি আঁকতে পারে কেউ ড্রাইভিং ভালো পারে। তাই এই দক্ষতাকে পেশা হিসেবে নিয়ে পড়াশোনার পাশাপাশি সে অর্থ উপার্জন করতে পারে।

* ইউটিউবে এর মাধ্যমে-বর্তমান সময়ে কম বেশি আমরা সবাই ইউটিউবে বেশ আগ্রহী। ইউটিউব এ নিজস্ব চ্যানেল খুলে সেখানে নিয়মিত কনটেন্ট দিয়ে ভালো উপার্জন করা যায়। চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার, কনটেন্ট এবং ভিউ ভালো থাকলে অনেক সম্মানজনক অর্থ উপার্জন করা যায় প্রতি মাসে। 

তবে ইউটিউব থেকে রোজগার করা একটু ধৈর্যের বিষয় ধৈর্য ধরে থাকলে youtube থেকে বিপুল অর্থ উপার্জন করা সম্ভব।

* গ্রাফিক ডিজাইন-ছাত্রা অবস্থায় গ্রাফিক্সের কাজ শিখে বিভিন্ন কোম্পানি এবং ডিজাইনারের কাজ করে আয় করা সম্ভব তাছাড়া গ্রাফিক্সের চাহিদা বর্তমান সময়ে অনেক বেশি। চাহিদা বেশি হয় ইনকাম ও বেশি হয়ে থাকে।

* কম্পিউটারের কাজ-বর্তমান সময়ে এমন কোন প্রতিষ্ঠান নেই যেখানে কম্পিউটারের কাজ হয় না। সব প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার অপারেটর প্রয়োজন হয়। প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের সমস্ত ডাটা বা তথ্য কম্পিউটারের রেকর্ড করে থাকেন। 

যে জন্য কম্পিউটারে পারদর্শী ছাত্র-ছাত্রী সহজে যেকোনো কোম্পানিতে চাকরি পেতে পারে। তাছাড়া ব্যক্তিগতভাবে কম্পিউটারে বিভিন্ন ধরনের কাজ করেও সে আয় করতে পারে।

পড়াশোনার পাশাপাশি টাকা উপার্জন-এর কিছু কার্যকরী পদ্ধতি জেনে নেওয়া যাক

পড়াশোনার পাশাপাশি টাকা উপার্জন করার অনেক রকম উপায় রয়েছে। এই উপায়গুলো যে সবগুলো সহজ তাও নয় তবে একটু ধৈর্য সহকারে সময় বের করতে পারলে ছাত্র বয়সে উপার্জন করা সহজ। নিচে কিছু পদ্ধতি উল্লেখ করা হলো-

* youtube-youtube বিশ্বের সেরা ভিডিও একটি জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম। দৈনন্দিন জীবনে যত কিছু দরকার প্রায় সমস্ত কিছুই ইউটিউব থেকে আমরা পেয়ে থাকি। youtube এ পড়াশোনা থেকে শুরু করে নাচ-গান, কম্পিউটার, বাইক ইত্যাদি সম্পর্কে জেনে থাকি বা তথ্য পেয়ে থাকি। একজন শিক্ষার্থী ইউটিউবে প্রতিনিয়ত ভিডিও বানিয়ে আপলোড করে টাকা ইনকাম করতে পারে।

* মেহেদী আর্টিস্ট-আপনি যদি একজন মেয়ে হন এবং আপনি যদি খুব সুন্দর ভাবে মেহেদি দিতে পারেন তাহলে এটিকে ব্যবসা হিসেবে নিতে। তবে ব্যবসা করার আগে ফেসবুকে একটি পেজ খুলে সেখানে ভালো মেহেদির ডিজাইন আপলোড করতে পারলে অনেকে সেটা দেখে আপনাকে কল করবে। এতে আপনার চাহিদাও বাড়বে। 

বাড়িতে গিয়ে সার্ভিস দেয়ার জন্য অবশ্য আপনি অতিরিক্ত চার্য নিতে পারেন যদি আপনার মেহেদী সম্পর্কে ভালো জ্ঞান থাকে সু সুন্দরভাবে মেহেদি দেওয়ার দক্ষতা থাকে তাহলে এই ব্যবসাটি করে উপার্জন করা সম্ভব।

* অনলাইনে টিউশন করানো-অফলাইনে পড়াশোনার পাশাপাশি আপনি অনলাইনে পড়াশোনা করাই বেশি টাকা আয় করতে পারবেন। যদি আপনার হাতে সময় না থাকে দূরে কোথাও গিয়ে পড়াশোনা করানোর তাহলে এই পদ্ধতিটা আপনার জন্য। পাশাপাশি বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার বিভিন্ন নোটস বিক্রি করে আপনি ভালো টাকা করতে পারবেন।

* ভিডিও এডিটর-একটু সাধারণ ভিডিও কে আকর্ষণীয় করা যায় এটি কে এডিট করার মাধ্যমে। আপনি যদি একজন ভালো এডিটর হয়ে থাকেন, তাহলে কাজ করে তাকে ইনকাম করা সহজ। বিভিন্ন ইউটিউব আর কোম্পানি তাদের ভিডিও এডিট করার জন্য ভালো এডিটর খুজে থাকেন। এবং তাদেরকে ভালো বেতন ও দেওয়া হয়।

গরিব ও মধ্যবিত্ত শিক্ষার্থীদের জন্য আয়ের সেরা উপায় জানুন

আমাদের দেশে গরিব এবং মধ্যবিত্ত বাবা মায়েদের সন্তানের পড়াশোনার খরচ চালাতে অনেকটাই কষ্ট করতে হয়। টাকার অভাবে অনেক গরিব ছাত্র-ছাত্রীরা ঝরে পড়ে। তারা পড়াশোনা বাদ দিয়ে বিভিন্ন স্থানে কাজ করে।

মধ্যবিত্ত পরিবারের শিক্ষার্থীরা টাকার অভাবে পড়াশোনা করতে পারে না তারা পড়াশোনার পাশাপাশি বিভিন্ন উপায়ে আয় করতে পারে। পড়াশোনার পাশাপাশি রোজগার করে অর্জিত অর্থ পড়াশোনার কাজে ব্যয় করার পাশাপাশি ফ্যামিলির উন্নয়নমূলক কাজে  খরচ করতে পারে। 

তাছাড়া পরিবারের কাজে নিজের আয় করা অর্থ ব্যয় করতে পারলে বেশ আনন্দ লাগে।পড়াশোনার পাশাপাশি টাকা উপার্জন করার বেশ কিছু পদ্ধতি বা উপায় রয়েছে সেগুলো হল-

* টিউশনি করে আয়-পড়াশোনার পাশাপাশি টিউশনি করে অর্থ উপার্জন করা যায়। টিউশনি করলে একদিকে যেমন জ্ঞান অর্জন হয় অন্যদিকে অর্থ উপার্জন ও হয়। যে সমস্ত শিক্ষার্থীদের খরচ বহন করা তাদের পরিবারের পক্ষে সম্ভব নয় তারা চাইলেই সহজে টিউশনি করে নিজের ব্যয় বহন করতে পারে। টিউশনি পাওয়া খুব কঠিন বিষয় নয় কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করলে সহজেই টিউশনি পাওয়া যায়।

* লেখালেখি করে শিক্ষার্থীদের আয় করা-যাদের লেখা লিখিতে বেশ অভ্যাস রয়েছে তারা বিভিন্ন ধরনের আর্টিকেল, বা নিবন্ধ লিখে এটি বিক্রি করে অর্থ উপার্জন করতে পারে। অনলাইনে বা বিভিন্ন সাইটে সংবাদ লিখে আয় করা যেতে পারে তাছাড়া ব্লগিং করেও আয় করা যায়।

* অনলাইনের মাধ্যমে আয়-বর্তমানে অনলাইন ব্যবসায়ের অবস্থান সর্বশীর্ষে। স্বল্প 
পরিমাণ মূলধন দিয়ে অনলাইনে পণ্য বিক্রি করে আয় করা যায়। 

* ভিডিও ব্লগিং করে আয়-ভিডিও ব্লক তৈরি করে অনেক শিক্ষার্থী বর্তমানে আয় করছে। অধ্যায়ন ছাড়াও অতিরিক্ত সময়ে ভিডিও ব্লক তৈরি করে এবং প্রকাশ করে প্রচুর অর্থ উপার্জন করা যায়। অনেক শিক্ষার্থী ভিডিও এডিট করতে পারে বা লাইভ ব্লগিং অনেক ভালো উপস্থাপন করতে পারে। এটা করেও প্রতি মাসে প্রচুর অর্থ উপার্জন করা যায়।

পড়াশুনার পাশাপাশি কলেজ ছাত্রদের আয় করার 5 টি সহজ উপায় জেনে নিন

টাকা আয় করা খুব সহজ কাজ নয়। টাকা ইনকাম করতে হলে কষ্ট করতে হবে। একটু কষ্ট করলেই যেসব উপায়ে পড়াশোনার পাশাপাশি টাকা আয় করা যায় তা হল-

* টিউশন করানো-ছাত্র অবস্থায় আয় করা সবচেয়ে ভালো উপায় হল টিউশন করানো। অন্য কাজগুলোর মধ্যে ছাত্রছাত্রীদের জন্য এ কাজটি পাওয়া অনেক সহজ। টিউশনি করালে যেমন পড়াশোনার চর্চা হয় আবার অর্থ উপার্জন হয়। 

টিউশন পাওয়াটা মোটামুটি সহজ বলা যায় বিভিন্ন মিডিয়া সাহায্য টিউশন পাওয়ার ব্যবস্থা করা যায়। আর টিউশন করাতে না চাইলে বিভিন্ন অ্যাডমিশন কোচিং অথবা একাডেমিক কোচিং গুলোতে ক্লাস নিতে পারলে একটু সন্তুষ্টজনক অর্থ উপার্জন করা যায়।

* অনলাইন ইনকাম করা-অনলাইন এর মাধ্যমে ইনকাম করতে চাইলে আপনার যে কোন একটা কাজে দক্ষ হওয়া লাগবে এবং এটা দীর্ঘ প্রসেসের মাধ্যমে হয়ে থাকে। একটু ধৈর্য সহকারে অনলাইনে কাজ করতে হবে হঠাৎ করে অনলাইনে ইনকাম করা সম্ভব নয়। 

অনলাইনে কাজ করতে চাইলে একটি ল্যাপটপ লাগবে অনেক ছাত্রদের ম্যানেজ করা সম্ভব হয়ে ওঠে না তারপরেও আপনি যদি সবকিছু ম্যানেজ করে অনলাইনে আয় করতে চান তাহলে ভালো কথা এখান থেকে আপনি চাইলে একজন চাকরিজীবীর চেয়েও বেশি ইনকাম করতে পারেন। 

অনলাইনে ছাত্রদের জন্য কাজ করার জন্য ভালো হচ্ছে ব্লগিং করা, আর্টিকেল লেখা কিংবা ইউটিউবং করে আয় করা।

* ফটোগ্রাফি করা-বর্তমানে একজন ভালো ফটোগ্রাফার বেশ চাহিদা রয়েছে। আপনার যদি একটা ভালো ক্যামেরা থাকে তাহলে বিভিন্ন ইভেন্ট বা অনুষ্ঠানের ফটোগ্রাফি করে টাকা আয় করা যায়। ভালো আর করতে চাইলে কোন একটা প্রতিষ্ঠান থেকে ফটোগ্রাফি কোর্স করে নিতে পারলে আরো ভালো হয়।

* পার্ট টাইম জব করা-অনেকে টিউশন করতে পছন্দ করেন না তারা টিউশনি করতে না চাইলে পার্ট টাইম জব করতে পারেন। বিভিন্ন শোরুমগুলোতে, কল সেন্টারগুলোতে শিক্ষার্থীদের চাহিদা বেশি।

* অনলাইন জরিপে অংশ নিয়ে-অনলাইন জরিপ পূরণ করা শিক্ষার্থীদের অবসর সময় অর্থ উপার্জনের একটি জনপ্রিয় উঠেছে বর্তমান সময়ে। গবেষণা সংস্থাগুলি প্রতিনিয়ত নতুন জরিপে অংশ হিসাবে শিক্ষার্থীদের সুযোগ করে দিচ্ছে। ফলে তারা পড়াশোনার পাশাপাশি বাড়তে অর্থ উপার্জনের সুযোগ পাচ্ছে।

পরিশেষে

প্রিয় বন্ধুগণ আপনারা যারা আর্টিকেলটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়েছেন আমি আশা করি আপনারা পড়াশোনার পাশাপাশি আর করার উপায়, গরিবের মধ্যবিত্ত শিক্ষার্থীদের জন্য আয়ের সেরা উপায়, পড়াশোনার পাশাপাশি কলেজ ছাত্রদের আয় করার বিভিন্ন পদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পেয়েছেন এবং উপকৃত হয়েছেন।

এ ধরনের আর্টিকেল পেতে আমাদের ওয়েব সাইটে নিয়ম করতে থাকুন। আবার দেখা হবে নতুন কোন আর্টিকেল নিয়ে সে পর্যন্ত আমাদের সঙ্গে থাকুন। সবশেষে আপনাদের সকলের মঙ্গল কামনা করে আজকের মত এখানে শেষ করছি। ধন্যবাদ

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url